সদ্য সংবাদ :
বিশেষ সংবাদ

আমদানি হচ্ছে ১০ লাখ টন

Published : Monday, 7 October, 2019 at 12:56 AM
শাহীন চৌধুরী: দেশে বর্তমানে এলএনজিসহ দৈনিক ৩ হাজার ২০০ মিলিয়ন ঘনফুট গ্যাস সরবরাহ করছে পেট্রোবাংলা। এর মধ্যে এলএনজি থেকে আসছে ৫৭০ মিলিয়ন ঘনফুট। বাকি ২ হাজার ৬৩০ মিলিয়ন ঘনফুট দেশের গ্যাসক্ষেত্রগুলো থেকে তোলা হচ্ছে। বর্তমানে দেশে স্থাপিত দুটি ভাসমান এলএনজি টার্মিনালের সরবরাহ ক্ষমতা দৈনিক ১ হাজার মিলিয়ন ঘনফুট।

এদিকে পাইপলাইনে সরবরাহকৃত গ্যাসের বাইরে বর্তমানে দেশে বার্ষিক এলপিজির চাহিদা চাহিদা ১৫ লাখ টনের বেশি। তবে আমদানি ও বিক্রি হচ্ছে বার্ষিক প্রায় ১০ লাখ টন। এর মধ্যে ২০ হাজার টন এলপিজি সরকারি ভাবে বিক্রি করা হয়। দেশের ৪০ লাখ আবাসিক গ্রাহক গ্যাস পাইপলাইনের ব্যবহার করে ৪৩০ মিলিয়ন ঘনফুট। এলএনজি আমদানির পর নতুন করে আবাসিকে গ্যাস সংযোগ দেয়ার কথা থকালেও এখনো এ ব্যপারে কোন সিদ্ধান্ত হয়নি। গত ২০১০ সাল থেকে কার্যত বাসাবাড়িতে নতুন গ্যাস সংযোগ বন্ধ রয়েছে। তখন  বলা হয়েছিল, রান্নার জন্য সিলিন্ডার এলপিজি (লিকুইড পেট্রোলিয়াম গ্যাস) সহজলভ্য করা হবে। এলপিজি আমদানিতে শুল্ক ছাড় দেওয়া হয়। ফলে সিলিন্ডার গ্যাসের দাম আগের তুলনায় কিছুটা কমে যায়।  

বর্তমানে গ্যাসের ঘাটতি পূরণে এলএনজি (লিকুইড ন্যাচারাল গ্যাস) আমদানি করা হচ্ছে। এলএনজির দাম কয়েক গুণ বেশি। ফলে জ্বালানি মন্ত্রণালয় থেকে বলা হয় যে বাসাবাড়িতে এই আমদানি করা গ্যাস দেওয়া হবে না। এই গ্যাস ব্যবহার হবে শুধু শিল্প খাতে। অবশ্য সম্প্রতি সরকারের উচ্চ পর্যায়ের এক কমিটি বাসাবাড়িতে পাইপলাইনে গ্যাস দেওয়ার সুপারিশ করেছে। কমিটি বলছে, এলপিজির চেয়ে এলএনজির দাম কম। তুলনামূলক ঝুঁকিমুক্ত। ফলে বাসাবাড়িতে নতুন করে পাইপলাইনে গ্যাস দেওয়া যেতে পারে। 

এদিকে গ্যাস সংযোগ বন্ধ থাকায় গত কয়েক বছরে বিতরণ কোম্পানিগুলোতে নতুন সংযোগের জন্য এক লাখের ওপর আবেদন জমা হয়েছে। সংশ্নিষ্ট সূত্র জানায়, পাইপলাইনে বাসাবাড়িতে গ্যাস দেওয়ার জন্য ব্যাপক চাপ আছে। বিগত সংসদ নির্বাচনের আগে আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দী প্রার্থীরা প্রতিশ্রুতি দেন যে এলাকায় গ্যাসের ব্যবস্থা করবেন। এজন্য অনেকে আবেদন করেছেন। এছাড়া ঢাকায় নতুন আবাসিক ভবনগুলোতে গাসের সংযোগ নেই। সেখানে সিলিন্ডার ব্যবহার হচ্ছে। কিন্তু পাশেরই পুরনো ভবনে পাইপলাইনে গ্যাস আছে। এটা একরকম বৈষম্য। আবাসন ব্যবসায়ীরাও পাইপলাইনে গ্যাসের জন্য চাপ দিয়ে যাচ্ছেন। 


এ প্রসঙ্গে বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, এলএনজি আসার পর আবাসিকে নতুন সংযোগ দেওয়ার বিষয়ে চিন্তাভাবনা চলছে। এখনও চূড়ান্ত কিছু হয়নি। প্রতিমন্ত্রী অবশ্য মনে করেন, বাসাবাড়িতে এলপিজি উত্তম সমাধান। এর কারণ হিসেবে তিনি বলেন, এলপিজির দাম কমছে। তা ছাড়া পাইপলাইনে গ্যাসে বড় ধরনের অপচয় হয়, চুরিও হয়। এলপিজির ক্ষেত্রে চুরির ঘটনা ঘটার কোনও সুযোগ নেই।



এবিনিউজ টুয়েন্টিফোর বিডিডটকম//এফ//








সম্পাদক: শাহীন চৌধুরী
ঢাকা অফিস: ২/১ হুমায়ুন রোড (কলেজ গেট) মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭ ফোন: ৮৮-০২-৯১১৯১১৬, হটলাইন: ০১৭১১-৫৮৩৬২৩, ০১৭১৭-০৯৮৪২৮, চট্টগ্রাম অফিস- আবাসিক সম্পাদক: জাহিদুল করিম কচি, নাসিমন ভবন (দ্বিতীয় তলা) ১২১, নূর আহমেদ রোড, চট্টগ্রাম ফোন: ০৩১-২৫৫৭৫৪২ হটলাইন: ০১৭১১-৩০৭১৭১, E-mail : [email protected], Web : www.abnews24bd.com, Developed by i2soft Technology Ltd.
Close