সদ্য সংবাদ :
খেলা

নির্বিষ বোলিংয়ে ব্যাকফুটে বাংলাদেশ

Published : Saturday, 8 February, 2020 at 8:04 PM
স্পোর্টস ডেস্ক :প্রথম দিনের মত রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের দ্বিতীয় দিনেও হতাশায় বাংলাদেশ। টাইগাররা ব্যাট হাতে যেমন ছন্নছাড়া, বল হাতেও তেমন। এর সাথে যোগ হয়েছে বাজে ফিল্ডিং ও ক্যাচ মিসের মহড়া। সারাদিনে ৮৭.৫ ওভার বোলিং করে স্বাগতিকদের মাত্র ৩ উইকেট নিতে সক্ষম হয়েছে টাইগার বোলাররা। যদিও আরো বেশি উইকেট শিকারের সুযোগ ছিল, কিন্তু ক্যাচ মিস ও বাজে ফিল্ডিংয়ে সেই সুযোগ হারিয়েছে বাংলাদেশ। উল্টো দুই ব্যাটসম্যনকে সেঞ্চুরি উপহার দিল বাংলাদেশের বোলাররা। দ্বিতীয় দিন শেষে ৩ উইকেট হারিয়ে পাকিস্তানের সংগ্রহ ৩৪২ রান। স্বাগতিকরা এগিয়ে আছে ১০৯ রানে। হাতে আছে ৭ উইকেট।

এর আগে দ্বিতীয় দিনের শুরুতেই পাক ওপেনারকে ফিরিয়ে উইকেট উৎসবে মেতেছিল বাংলাদেশ। কিন্তু সময়ের সাথে সাথে সেই উৎসবে নেই বাংলাদেশ। কারণ টেস্টের দ্বিতীয় দিনেই পাকিস্তানের ব্যাটসম্যানরা ব্যাট চালিয়েছেন ওয়ানডে স্টাইলে। প্রথম সেশনে প্রাপ্তির খাতায় ২ উইকেট যোগ করেছে সফরকারীরা। দুটো উইকেটই নিয়েছেন আবু জায়েদ। ইনিংসেরদ্বিতীয় বলেই উইকেট উৎসবে মাতেন জায়েদ। উইকেটকিপার লিটন দাসের গ্লাভসবন্দী করে ফেরান ওপেনার আবিদ আলীকে (০)। পরের সময়টায় পরীক্ষা দিতে হয়েছে বাংলাদেশের বোলারদের। শান মাসুদ ও আজহার আলীর প্রতিরোধ ভাঙা যাচ্ছিল না কিছুতেই। অতঃপর সেই জায়েদই ত্রাতা হিসেবে আবির্ভূত হলেন। ৩৪ রান করা আজহারকে ফিরিয়ে ভাঙেন ৯১ রানের জুটি।

এরপর রুবেল হোসেনের অফস্ট্যাম্পের বাইরে লেন্থের বল শান মাসুদের ব্যাটে লেগে উইকেটের পেছনে ক্যাচ যায়। কিন্তু মাঠে কোন টু শব্দই কেউ করেননি। বোলার রুবেল, উইকেট রক্ষক লিটন, স্লিপে থাকা শান্ত, মিথুন বুঝতেই পারেননি সেটা। এভাবে জীবন পেয়ে সেঞ্চুরি তুলে ফেললেন মাসুদ। ১৫৭ বলে ১১ চারে এই সেঞ্চুরি তুলেছেন শান। অবশ্য শতক পূরণের পরপরই তাইজুল ইসলামের শিকার হয়ে ফিরতে হয়েছে প্যাভিলিয়নে। টানা দ্বিতীয় সেঞ্চুরি পেলেন মাসুদ। তৃতীয় সেশনের শুরুতেই মাত্র ৩ উইকেট হারিয়ে বাংলাদেশের ২৩৩ রান টপকে লিড নিয়েছে স্বাগতিক পাকিস্তান। শান মাসুদ সেঞ্চুরি হাঁকিয়ে বিদায় নিলেও বাবর আজম ও আসাদ শফিকের ব্যাটে ১০৯ রানে এগিয়ে থেকে দিনশেষ করে স্বাগতিকরা।

রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের প্রথম ইনিংসে বাংলাদেশ অলআউট হয়েছে ২৩৩ রানে। আলোক স্বল্পতার কারণে ৭ ওভার বাকি থাকতেই ম্যাচের ইতি টেনে দেন কর্তব্যররত আম্পায়াররা।

দুই ম্যাচ সিরিজের সিরিজের প্রথম টেস্টে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ের শিকার হয় টিম বাংলাদেশ। সেই বিপর্যয়ে পরে প্রথম ইনিংসে ২৩৩ রানে অল আউট হতে হয়েছে বাংলাদেশকে। এরপরই প্রথমদিনের খেলারও সমাপ্তি টানা হয়।

এর আগে রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের প্রথম দিনে টসে হেরে ব্যাটিং করতে নেমে ইনিংসের প্রথম বলে ৩ রান নিয়ে সাইফকে ব্যাটিংয়ে পাঠিয়েছিলেন তামিম। শাহীন আফ্রিদির করা দ্বিতীয় বল ঠিকঠাক মতোই সামলেছেন সাইফ। কিন্তু তৃতীয় বলটি খেলতে গিয়ে গড়বড় করেন সাইফ। অফস্ট্যাম্পের বাইরের ফুলারলেন্থ বল ড্রাইভ করতে গিয়ে দ্বিতীয় স্লিপে ক্যাচ দেন। আলগা শটে নিজের উইকেট হারান তরুণ ওপেনার। সাইফের আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের পথচলা শুরু হল শূন্য রান দিয়ে। এরপর তামিমও বেশিক্ষণ থাকতে পারলেন না। পরের বলেই আব্বাসের বলে এলবির শিকার হয়ে সাজঘরে ফেরেন তামিম।

শুরুতেই দুই উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় বাংলাদেশ। সেই অবস্থা থেকে দলকে টেনে তুলছিলেন নাজমুল-মুমিনুল। কিন্তু দুজনের জুটিতে ৫৮ রান তুলেই শাহীন আফ্রিদির শিকার হন দলপতি মুমিনুল। ৫৯ বলে ৫ চারে মুমিনুলের রান ৩০। আফ্রিদির বলে উইকেটকিপার রিজওয়ানের ক্যাচ হয়ে ফেরেন তিনি।

৯৫ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে লাঞ্চে গিয়েছিল বাংলাদেশ। লাঞ্চ থেকে ফিরে স্কোরকার্ডে কোন রান যোগ না হতেই আব্বাসের বলে রিজওয়ানের ক্যাচ হয়ে ফেরেন নাজমুল হোসেন শান্ত। ফেরার আগে ১১০ বলে ৪৪ রান তুলেছেন তিনি।

শান্তর বিদায়ের পর ক্রিজে বেশিক্ষণ থাকতে পারেননি মাহমুদউল্লাহও। দলীয় ১০৭ রানে আফ্রিদির বলে স্লিপে ক্যাচ দিয়ে ফিরলেন মাহমুদউল্লাহ। ফেরার আগে ৪৮ বল খেলে মাহমুদউল্লাহ রান তুলেছেন ২৫।

৫ উইকেটের পর বাংলাদেশের হয়ে হাল ধরেছিলেন লিটন-মিথুন। কিন্তু তাতে বাধ সেধে লিটনকে(৩৩) সাজঘরে পাঠান হারিস সোহেল। লিটনের বিদায়ে ভাঙলো ৫৪ রানের জুটি। এরপর বাংলাদেশকে টেনে তুলেছেন তাইজুল-লিটন জুটি। ৭২ বলে ২৪ রানের ধৈর্যশীল খেলে তাইজুল বিদায় নিলে শেষ হয় বাংলাদেশের প্রতিরোধের লড়াই। এরপর দ্রুত বিদায় নেন রুবেল হোসেন।

কিছুক্ষণ পর হাল ছেড়ে দিয়ে ড্রেসিংরুমের পথ ধরেন দিনের সেরা ব্যাটসম্যান মিঠুনও। নাসিম শাহ’র শিকার হওয়ার আগে তার ব্যাট থেকে আসে ১৪০ বলে ৬৩ রান। ইনিংসটি ৭টি চার ও ১টি ছক্কায় সাজানো। এরপর কোনো রান করার আগেই রান আউটের শিকার হয়ে দলের ইনিংসের সমাপ্তি ঘটান আবু জায়েদ।

বল হাতে পাকিস্তানের শাহীন শাহ আফ্রিদি একাই নিয়েছেন ৪ উইকেট। ২টি করে উইকেট গেছে মোহাম্মদ আব্বাস ও হারিস সোহেলের দখলে। ১টি উইকেট গেছে নাসিম শাহ’র ঝুলিতে।

এবার দ্বিতীয় দফায় পাকিস্তান সফরে গেছে বাংলাদেশ। প্রথম ধাপে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজে ২-০ ব্যবধানে হারে টাইগাররা. লাল বলের ক্রিকেটে দু’দলের ১০ বারের সাক্ষাতে ৯ ম্যাচ হেরেছে বাংলাদেশ। বাকি ম্যাচটি ড্র হয়েছে। অবশ্য নিজেদের শেষ টেস্ট সিরিজে শ্রীলঙ্কাকে হারানো পাকিস্তানও স্বস্তিতে নেই। কারণ গত ২৩ বছর রাওয়ালপিন্ডিতে টেস্ট জিতেনি স্বাগতিকরা। গত চার ম্যাচের মধ্যে তারা তিন ম্যাচে হেরেছে এখানে।

বাংলাদেশ একাদশ:

তামিম ইকবাল, সাইফ হাসান, নাজমুল হোসেন শান্ত, মুমুনিল হক (অধিনায়ক), মোহাম্মদ মিঠুন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, লিটন দাস (উইকেটরক্ষক), তাইজুল ইসলাম, রুবেল হোসেন, আবু জায়েদ ও এবাদত হোসেন।

পাকিস্তান একাদশ:

শান মাসুদ, আবিদ আলী, আজহার আলী (অধিনায়ক) বাবর আজম, আসাদ শফিক, হারিস সোহেল, মোহাম্মদ রিজওয়ান (উইকেটরক্ষক), ইয়াসির শাহ, মোহাম্মদ আব্বাস, শাহীন আফ্রিদি নাসিম শাহ।

এবিনিউজ টুয়েন্টিফোর বিডিডটকম//এফ//










সম্পাদক: শাহীন চৌধুরী
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: হেলেনা বিলকিস চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক: শঙ্কর মৈত্র, নির্বাহী সম্পাদক: বরুণ ভৌমিক নয়ন, ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: সৈয়দ আফজাল বাকের, ঢাকা অফিস: ২/১ হুমায়ুন রোড (কলেজ গেট) মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭ ফোন: ৮৮-০২-৯১১৯১১৬, হটলাইন: ০১৭১১-৫৮৩৬২৩, ০১৭১৭-০৯৮৪২৮, চট্টগ্রাম অফিস- আবাসিক সম্পাদক: জাহিদুল করিম কচি, নাসিমন ভবন (দ্বিতীয় তলা) ১২১, নূর আহমেদ রোড, চট্টগ্রাম ফোন: ০৩১-২৫৫৭৫৪২ হটলাইন: ০১৭১১-৩০৭১৭১, E-mail : [email protected], Web : www.abnews24bd.com, Developed by i2soft Technology Ltd.
Close