সদ্য সংবাদ :
অর্থ ও বাণিজ্য

করোনার প্রভাবে বিপর্যস্ত হস্তশিল্প খাত :বেকার হতে পারে ৩০/৪০ হাজার মানুষ !

Published : Wednesday, 25 March, 2020 at 8:47 PM
গোলাম আহসান: বাংলাদেশের ঐতিহ্য, সংস্কৃতির বিকাশ ও দারিদ্র বিমোচনের হাতিয়ার  হিসেবে সত্তরদশক থেকে জাতীয় অর্থনীতিতে হস্তশিল্প গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে । বর্তমানে এই শিল্পের সঙ্গে সরাসরি এককোটি কারুশিল্পী জড়িত এবং তাদের জীবিকা এই শিল্পের মাধ্যমে জীবিকা নির্বাহ হচ্ছে । 

শতভাগ দেশীয় কাঁচামাল ব্যবহার করে উৎপাদিত পণ্য রপ্তানীর মাধ্যমে বৈদাশিক মুদ্রা অর্জন করে আসছে । প্রতি অর্থ বছরে যার পরিমাণ প্রায় ১০০ মিলিয়ন ডলারের উপরে। এছাড়া এই শিল্পের স্থানীয় বাজারের পরিমাণ প্রায় ৭ হাজার কোটি টাকা । হস্তশিল্প অত্যন্ত উঁচু মাত্রার শ্রমঘণ একটি অপ্রচলিত রপ্তানী খাত । যার বিশেষ বৈশিষ্ট হচ্ছে- গ্রামীণ জনগোষ্ঠীর বিরাট একটি অংশ বিশেষত প্রান্তিক ও দারিদ্রসীমায় বসবাসকারী নারী, হস্তশিল্প উৎপাদনের সাথে জড়িত এবং সরাসরি উপকৃত । এছাড়া হস্তশিল্প উদ্যোক্তাগণের সকল কাঁচামাল সম্পূর্ণ দেশীয় হওয়ায় উপার্জিত বৈদাশিক মুদ্রা শতভাগ দেশেই রয়ে যায় । 

হাতে তৈরী পণ্যের গুণগতমান ও দামের ক্ষেত্রে আমাদেরকে ভিয়েতনাম, কম্বোডিয়ার, চীন ও ভারতের সাথে প্রতিযোগীতা করতে হয়। কিন্তু গবেষণা ও উন্নয়নসহ অন্যান্য সুযোগ-সুবিধার ক্ষেত্রে তারা আমাদের অনেক এগিয়ে থাকায় । আন্তর্জাতিক বাজারে তাদের সাথে  ঠিকে থাকা আমাদের জন্য দূরহ হওয়ায় বিগত বছরগুলোতে সরকার এই খাতে ২০% নগদ সহায়তা দিয়ে আসছিল । কিন্তু চলতি অর্থ বছরে হঠাৎ করে রপ্তানির বিপরীতে নগদ সহায়তার হার ২০% থেকে ১০% করা হয়েছে । ইতিমধ্যেই হুমকির মুখে থাকা হস্তশিল্প মরণব্যাধি করোনার কারণে আজ চরম বিপর্যয়ের মুখে পতিত । কারণ এ খাতের রপ্তানীকারকদের শত শত নিশ্চিত অর্ডার প্রতিনিয়ত বাতিল হচ্ছে । ইতিমধ্যেই তাদের কারখানাগুলো স্থবির হয়ে পড়েছে, যা প্রায় বন্ধ হওয়ার উপক্রম ! এতে করে গ্রাম্য অর্থনীতির অন্যতম চালিকা শক্তি হস্তশিল্পের সাথে জড়িত হাজারো উৎপাদনকারী ও রপ্তানীকারক আজ নিজেদের জীবিকা নিয়ে চরম শঙ্কার মুখে ।

এখন পর্যন্ত আমাদের প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী বিগত এক মাসে হস্তশিল্প খাতের বাতিলকৃত অর্ডারের পরিমাণ প্রায় ৩০ মিলিয়ন ডলার । 

উদাহরণ হিসেবে বলা যায় এককভাবে শুধুমাত্র কারুপণ্য রংপুর লিমিটেডের গত মাসে বাতিলকৃত অর্ডারের পরিমাণ ৫.২ মিলিয়ন ডলার এবং তাদের প্রায় ৫,৭৮০ জন শ্রমিক-কর্মচারীর বেতন-ভাতা নিয়ে তারা এক ভয়াবহ বিপদের সম্মুখীন ! সেই সাথে স্যান ট্রেড লিমিটেড- এর বাতিলকৃত অর্ডারের পরিমাণ প্রায় ১ মিলিয়ন ডলার এবং অব্যবহৃত মজুদ কাঁচামালের পরিমাণ প্রায় ১ কোটি টাকা । এছাড়া গোল্ডেন জুট প্রডাক্টস, এসিক্স লিঃ, পেবেলচাইল্ড বাংলাদেশ লিঃ- এর সম্মিলিত ক্ষতির পরিমাণ ২ মিলিয়নের উপরে । 
এ মতাবস্থায় প্রত্যেক হস্তশিল্প রপ্তানীকারকগণ নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের শ্রমিক-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা নিয়ে চরম শঙ্কায় দিন কাটাচ্ছে এবং ৩০-৪০ হাজার মানুষের চাকুরী/কাজ এখন সরাসরি হুমকির মুখে ! বর্তমান পরিস্থিতি যদি অব্যাহত থাকে তাহলে এর প্রভার নাগালের বাহিরে চলে যাবে, যা হয়ত করোনা ভাইরাস থেকেও ভয়াবহ পরিস্থিতির সৃষ্টি করবে ! কারণ নিম্ন আয়ের হস্তশিল্প শ্রমিকগণ যদি তাদের চাকুরী হারায় তাহলে তাদের পরিবার-পরিজন না খেয়ে মারা যাবে !

বাংলাদেশের হস্তশিল্পের প্রতিনিধিত্বকারী সংগঠন বাংলাদেশ হস্তশিল্প প্রস্তুতকারক ও রপ্তানীকারক সমিতি-বাংলাক্রাফট ইতিমধ্যেই এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও প্রতিষ্ঠানসমূহকে লিখিতপত্রের মাধ্যমে বিষয়টি অবহিত করেছে ।
 সরকার হস্তশিল্পের সাথে সংশ্লিষ্টদের জীবন ও জীবিকার কথা বিবেচনা করে হস্তশিল্পকে বাঁচাতে দ্রুত এই খাতে বিশেষ আর্থিক অনুদানের ব্যবস্থা করবে বলে হস্তশিল্প রপ্তানীকারকদের দৃঢ় বিশ্বাস । তা না হলে কোন প্রতিষ্ঠানই কর্মীদের বেতন-ভাতা দিতে সক্ষম হবে না ।

 

গোলাম আহসান
সভাপতি
বাংলাদেশ হস্তশিল্প প্রস্তুতকারক ও রপ্তানীকারক সমিতি-বাংলাক্রাফ্‌ট







সম্পাদক: শাহীন চৌধুরী
ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক: হেলেনা বিলকিস চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক: শঙ্কর মৈত্র, নির্বাহী সম্পাদক: বরুণ ভৌমিক নয়ন, ব্যবস্থাপনা সম্পাদক: সৈয়দ আফজাল বাকের, ঢাকা অফিস: ২/১ হুমায়ুন রোড (কলেজ গেট) মোহাম্মদপুর, ঢাকা-১২০৭ ফোন: ৮৮-০২-৯১১৯১১৬, হটলাইন: ০১৭১১-৫৮৩৬২৩, ০১৭১৭-০৯৮৪২৮, চট্টগ্রাম অফিস- আবাসিক সম্পাদক: জাহিদুল করিম কচি, নাসিমন ভবন (দ্বিতীয় তলা) ১২১, নূর আহমেদ রোড, চট্টগ্রাম ফোন: ০৩১-২৫৫৭৫৪২ হটলাইন: ০১৭১১-৩০৭১৭১, E-mail : [email protected], Web : www.abnews24bd.com, Developed by i2soft Technology Ltd.
Close